মুরালি-সাকিবের সেলফিতে লঙ্কান ভক্তের আক্রমণাত্মক মন্তব্য, অত:পর শুরু হলো….

ক্রিকেট

দুদিন আগেই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে নিয়ে উচ্ছসিত মন্তব্য করেছিলেন লঙ্কান কিংবদন্তী মুত্তিয়া মুরালিধরন। আইপিএলের সূত্রে দুজন এখন একই শিবিরে। যে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের জার্সিতে মাঠে নামবেন সাকিব, সেই দলের বোলিং কোচ হলেন মুরালি। দুই প্রজন্মের দুই ঘূর্ণি জাদুকরকে দেখা গেলো একই ফ্রেমে।

রোববার সন্ধ্যায় নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে মুরালির সঙ্গে একটি সেলফি পোস্ট করেন সাকিব। ক্যাপশনে হ্যাশট্যাগ দিয়ে লেখা ‘লিজেন্ড’ এবং ‘রেসপেক্ট’ শব্দদুটি। দুই মহাতারকাকে এক ফ্রেমে দেখে স্বভাবতই উচ্ছসিত সাকিব ভক্তরা। সানরাইজার্সের হয়ে দুর্দান্ত পারফর্মেন্স করার জন্য সাকিবকে শুভকামনা জানাচ্ছেন সবাই। তবে এর মাঝেই এক শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট ভক্ত আক্রমণাত্মক ভাষায় কমেন্ট করেন।

শ্রীলঙ্কা বরাবরই বাংলাদেশের ক্রিকেটের বন্ধু। দুই দেশের দর্শকের মাঝেও কোনো ঝামেলা ছিল না এতদিন। কিন্তু গত মাসে অনুষ্ঠিত নিদাহাস ট্রফির ফাইনাল নির্ধারণী ম্যাচের শেষ ওভারে নাটকীয় ঘটনা ঘটে যায় দুই দলের মাঝে। একটি নো বলকে কেন্দ্র করে বারবার বিবাদে জড়ায় দুই দলের ক্রিকেটারেরা। বাংলাদেশি দর্শকদের ওপর লঙ্কানদের হামলার ঘটনাও ঘটে। বাংলাদেশ ফাইনাল নিশ্চিত করলেও শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে লঙ্কান দর্শকেরা সমর্থন দেয় ভারতকে।

ফাইনাল শেষে দুই দলের ক্রিকেটারেরা সব ভুলে গেছেন। এমনকি পিএসএলে গিয়ে বিবাদের অন্যতম নায়ক থিসারা পেরেরার সঙ্গে সেলফি পোস্ট করেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। কিন্তু লঙ্কান দর্শকেরা মনে হয় সেই হারের ক্ষত এখনও ভুলতে পারেননি। তাই হয়তো বুদ্ধিকা রত্নায়েক নামে এক লঙ্কান ক্রিকেটপ্রেমী সাকিবের পোস্টে মন্তব্য করেন, শ্রীলঙ্কায় তুমি যে বাজে ব্যবহার করেছ, তারপর আমাদের লিজেন্ডের সঙ্গে এই সেলফি পোস্ট করার কোনো মানে নেই। তোমাদের ব্যবহার আমরা চিরদিন মনে রাখব।
বুদ্ধিকার এই কমেন্টের পর যথারীতি দুই দেশের সমর্থকদের ‘কমেন্টযুদ্ধ’ শুরু হয়ে গেছে। দুদিন আগেই নিদাহাস ট্রফিতে বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত কোচের দায়িত্ব পালন করা ক্যারিবীয় কিংবদন্তি কোর্টনি ওয়ালশ বলেছিলেন, লঙ্কান দর্শকরা আমাদের ভুল বুঝেছে। বুদ্ধিকার কমেন্ট যেনো ওয়ালশের কথারই প্রতিধ্বনি। সেই ‘ভুল বোঝা’টা এখনও ভুলতে পারেনি লঙ্কান ক্রিকেটপ্রেমীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *