অসুস্থ খালেদা, সংবাদ সম্মেলনে যা বললেন ফখরুল

রাজনীতি

তিন বার জনগণের বিপুল ভোটে নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সাথে সরকার যে আচরণ করছে তা কোনো সভ্য গণতান্ত্রিক দেশে আশা করা যায় না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শুক্রবার (৩০ মার্চ) সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

এসময় দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে অবিলম্বে তাকে মুক্তি দিয়ে বিদেশে পাঠানোর আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়াকে নিজস্ব চিকিৎসকদের মাধ্যমে স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও সুচিকিৎসার সুযোগ দিতে হবে। জেলকোডেও নিজস্ব চিকিৎসকের দ্বারা চিকিৎসা করার সুযোগ দেওয়ার নিয়ম আছে। খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে আমার উদ্বিগ্ন।

মির্জা ফখরুল বলেন, তিনি (খালেদা জিয়া) জামিন পেয়েছেন, কিন্তু তাকে বের হতে দেয়া হচ্ছে না। অবিলম্বে তাকে মুক্তি দিয়ে সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে হবে। যাতে করে দেশে বা বিদেশে তার প্রয়োজনীয় চিকিৎসা নিশ্চিত হয়।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, বৃহস্পতিবার খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার অনুমতি পেয়েছিলাম, কিন্তু হঠাৎ করে বিকেলে কারা কতৃপক্ষ জানায় তিনি অসুস্থ। সিভিল সার্জন কারাগারে গিয়ে তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করবেন। এরপর আর আমরা জানতে পারিনি তার শারীরিক অবস্থা কেমন। আমরা জানতে চাই, তিনি কেমন আছেন। তার নিজস্ব চিকিৎসকদের দেখার সুযোগ দেওয়া হোক।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই জনগণকে দূরে সরিয়ে রেখে রাজনীতিকে স্বৈরতান্ত্রিক পর্যায়ে নিয়ে গেছে। তারা বিরোধী দল বিএনপিকে পুরোপুরি স্তব্ধ করে দিতে চায়।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, নজরুল ইসলাম খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী প্রমুখ।

উল্লেখ, দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা জিয়ার অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত। ওই দিনই তাকে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরাতন কারাগারে একমাত্র বন্দি হিসেবে খালেদা জিয়া একমাসেরও অধিক সময় ধরে সেখানে রয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *