বাংলাভিশনের বার্তা প্রধানের সাথে স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সৌজন্য বৈঠক

প্রবাস

কবির আল মাহমুদ ,মাদ্রিদ স্পেন :গত ২ মার্চ শুক্রবার বাংলাভিশন টিভি চ্যানেলে বার্তা প্রধান মোস্তফা ফিরোজের সাথে স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবে সৌজন্য বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বার্সেলোনার স্থানীয় একটি রেস্তোরাঁয় সন্ধ্যা সাতটায় অনুষ্ঠিত উক্ত সৌজন্য বৈঠকে স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সদস্যবৃন্দ ও বাংলাদেশী কমিউনিটির ব্যক্তিবর্গ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। সৌজন্য বৈঠকে প্রবাসী বাংলাদেশীদের বিভিন্ন সমস্যা ও সেগুলো সমাধানে বাংলাদেশ সরকারের যথাযথ পদক্ষেপের ক্ষেত্রে

মিডিয়া কেমন ভূমিকা রাখতে পারে -সে বিষয়ে আলোচনা হয়।

স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সাহাদুল সুহেদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আফাজ জনির পরিচালনায় উক্ত বৈঠকে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাভিশন টিভি চ্যানের বার্তা প্রধান মোস্তফা ফিরোজ, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অল ইউরোপিয়ান বাংলাদেশ এসোসিয়েশন আয়েবা’র সভাপতি জয়নাল আবদিন, আয়েবার বাংলাদেশ চিফ কো-অর্ডিনেটর তানভীর সিদ্দিকি ও এসোসিয়াসিয়ন কোলতুরাল ই উমানিতেরিয়া দে বাংলাদেশ এন কাতালোনিয়ার সভাপতি মাহারুল ইসলাম মিন্টু।
স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের প্রথম সদস্য সাংবাদিক মিরন নাজমুলের সূচনা বক্তব্যের পর বৈঠকে উপস্থিত কমিউনিটির ব্যক্তিবর্গ কর্তৃক উত্থাপিত প্রবাসীদের বিভিন্ন সমস্য ও দাবি-দাওয়া নিয়ে অতিথিদের সাথে মত বিনিময় অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় প্রধান অতিথিকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়া হয়। কমিউনিটির প্রতিনিধিদের বক্তব্যে প্রবাসীদের মরদেহ বিনা খরচে বাংলাদেশে প্রেরণ, বাংলাদেশের বিমানবন্দরে প্রবাসীদের বিভিন্ন হয়রানি, বাংলাদেশে ভ্রমনকালীন সময় বিভিন্ন হয়রানি, প্রবাসীদের পাসপোর্ট ও ন্যাশনাল আইডিকার্ড তৈরিতে জটিলতা এবং প্রবাসীদের ভোটাধিকার ইত্যাদি বিষয়গুলো ওঠে আসে।

বাংলাভিশন টিভি চ্যানেলে প্রবাসীদের অংশগ্রহণমূলক অনুষ্ঠান সাপ্তাহিক অনুষ্ঠান ‘প্রবাসী মুখ’-এর পরিচালক মোস্তফা ফিরোজ দীর্ঘ সময় ধরে প্রবাসীদের নিয়ে কাজ করার অভিজ্ঞতার আলোকে উত্থাপিত বিষয়গুলো নিয়ে বিভিন্ন পরামর্শমূলক বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, প্রবাসীদের দাবি ও আন্দোলনের প্রেক্ষিতে এবং সরকারের আন্তরিকতায় গত ৩০ বছরের প্রবাসীদের কল্যাণের জন্য সরকার অনেক কিছুই করেছেন। ভবিষ্যতেও যেনো প্রবাসীদের ন্যয্য ও যৌক্তিক দাবিগুলো সরকার গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করেন সেই জন্য প্রবাসীরা তাদের দাবিতে সোচ্ছার থাকতে পরামর্শ দেন।
তিনি আরো বলেন- প্রবাসীদের সন্তান ও তাদের ভবিষ্যত প্রজন্মকে বাংলাদেশের ইতিহাস ও সাংস্কৃতি বোঝাতে হবে। তাদের সুশিক্ষিত করে গড়ে তোলাসহ প্রবাসের স্থানীয় প্রশাসন ও রাজনীতিতে অংশগ্রহণের সুযোগ তৈরি করে দিতে হবে। তাহলে বিদেশের মাটিতেও বাংলাদেশের কমিউনিটিগুলো শক্তিশালী হয়ে ওঠবে। এছাড়া বাংলাদেশ সরকারের প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রনালয়ের প্রশাসনিক কাজে সরাসরি প্রবাসীদের জন্যে কোটা ব্যবস্থা তৈরি করে দেবার জন্য সরকারের কাছে আহ্বান করেন। তিনি বলেন, যেহেতু প্রবাসীরাই প্রবাসীদের ভালো-মন্দটা বেশি উপলব্ধি করেন, সেহেতু এই মন্ত্রণালয়ে তারা প্রবাসীদের দাবিগুলোর গুরুত্ব যাচাই করে আন্তরিকতার সাথে সেগুলোর সমাধানে বেশি সচেষ্ট হবেন।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক নুরুল ওয়াহিদ, লোকমান হোসেন, ফয়জুল হক রানা, এম লায়েবুর রহমান, ইসমাইল হোসেন রায়হান। কমিউনিটির বিভিন্ন সামাজিক সাংগঠনিক ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আব্দুল বাসিত কয়সর, জাহাঙ্গীর আলম, শাহ আলম স্বাধীন, সাব্বির আহমেদ দুলাল, সফিউল আলম সফি, শফিকুর রহমান, আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, শফিক খান, আমির হোসেন আমু, আবুল কালাম আজাদ, মনিরুজ্জামান সুহেল, কয়েস খান, মোহাম্মদ কামরুল, অয়াজিজুর রহমান, শাহাব রহমান, মহিউদ্দিন হারুন, জাফার হোসাইন, কামাল বেপারী, সালাহ উদ্দিন প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *