‘গণতন্ত্রকে ধ্বংস করতে হলে বেগম জিয়াকে ভিতরে রাখতে হবে’

রাজনীতি

কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে সরকারের ভূমিকায় জনগণের মনে শঙ্কা জেগেছে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

তিনি বলেন, সরকার বলছে উনি অসুস্থ কিন্তু ওনার (খালেদা জিয়া) অসুস্থতা কি তা নিয়ে দেশের জনগণের মনে শঙ্কা জেগেছে।

শুক্রবার (৩০ মার্চ) জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। দুর্নীতি দুঃশাসন বিরোধী দিবস ও বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা)।

‘বেগম জিয়ার সুচিকিৎসার জন্য ব্যবস্থা নেবে সরকার, কারাবন্দী বলে তার চিকিৎসা কার্যক্রম ব্যহত হবে না। যদি চিকিৎসকরা বিদেশে পাঠানোর পরামর্শ দেয় তবে তারও ব্যবস্থা করা হবে’-আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া খসরু বলেন, দেশের মানুষের মনে প্রশ্ন জেগেছে। কেউ জানে না বেগম খালেদা জিয়ার কি অসুস্থতা।

তিনি বলেন, অসুস্থতাটা কি সেটাই জানলাম না এরমধ্যে বিদেশে পাঠিয়ে দেওয়ার কথা চলে আসে। তাই তার চিকিৎসায় সরকারের ভূমিকা নিয়ে জনগণের মনে প্রশ্ন জেগেছে।

বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে ধ্বংস করার জন্যই বেগম জিয়াকে জেলে রাখা হয়েছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, তাই তাকে (খালেদা জিয়া) ধ্বংস করতে পারলে, ওনার দল ধ্বংস হয়ে যাবে। বাংলাদেশের গণতন্ত্র ধ্বংস হয়ে যাবে, একদলীয় শাসনের কাজটি পরিপূর্ণ হবে তার পরিপ্রেক্ষিতে উনাকে (খালেদা জিয়া) জেলে রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, দেশের জনগণকে নির্বাচনের বাইরে রাখতে হলে বেগম খালেদা জিয়াকে ভিতর রাখতে হবে। গণতন্ত্রকে ধ্বংস করতে হলে বেগম জিয়াকে ভিতরে রাখতে হবে। মানবাধিকার আইনের শাসনকে নিতে হলে বেগম জিয়াকে ভিতর রাখতে হবে। আজকে দেশের আইনের শাসন ভোটাধিকার সবকিছু খালেদা জিয়াকে ঘিরে।

সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, জনগণ বদ্ধপরিকর যে, আগামী নির্বাচনকে ঘিরে বেগম খালেদা জিয়াকে ভিতরে রেখে যে পরিকল্পনা করছে দেশে জনগণ তা হতে দেবে না বলেও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি অধ্যাপিকা রেহানা প্রধানের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন- ন্যাশনাল পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, জাতীয় পার্টি জাফর সভাপতি মোস্তফা জামাল হায়দার, কল্যাণ পার্টি সভাপতি মেজর জেনারেল অবসরপ্রাপ্ত সৈয়দ ইব্রাহিম, জাগপার সহ সভাপতি ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধান, এনপিপির যুগ্ম মহাসচিব ফরিদ উদ্দীন প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *