২০১৮ বিশ্বকাপ জিততে তিনটা মেসি লাগবে আর্জেন্টিনার

খেলাধুলা ফুটবল

আর মাত্র আড়াই মাসের মত বাকি ২০১৮ রাশিয়ার বিশ্বকাপ শুরু হতে। এরই মধ্যে নিজেদের জালাই করে নিতে মাঠে নেমেছে ফুটবল দল গুলা। নেমে পড়েছে প্রীতি ম্যাচে। তবে এবারের প্রীতি ম্যাচে ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, জার্মানি, স্পেন এবং ফ্রান্স। সবাই নিজেদের ম্যাচে ভালো পারফর্ম করলেও একেবারেই বাজে খেলেছিল আর্জেন্টিনা।

২০১৮ বিশ্বকাপে চান্স না পাওয়া ইতালির বিরুদ্ধে জপ্য পেলেও আর্জেন্টিনা তেমন আক্রমন করতে পারেনী। আর দ্বিতীয় ম্যাচতো লেজে গবরে অবস্থা। আর

তৃতিয় ম্যাচ দেখে মনে হয়নি এতা আর্জেন্টিনা দল। মনে হচ্ছিল অলিগলিতে খেলা কোনো একটি দল স্পেনের বিপক্ষে খেলেছে। যার ফল ৬-১ গোলের বিশাল ব্যবধানে পরাজয়। এ নিয়েই উত্তপ্ত পুরো আর্জেন্টিনা।

২০১৮ বিশ্বকাপ লিওনেল মেসি সহ আরো অনেক খেলোয়াড়ের শেষ বিশ্বকাপ। এজন্য সকলেরই চাওয়া এবারের বিশ্বকাপ জিতে মেসি জাতীয় দলে না সাফল্য পাওয়ার তকমাটা মুছে ফেলুক। কন্তু বিশ্বজুড়ে আর্জেন্টাইন সমর্থকরা হয়তো বসে বসে শিরোপা স্বপ্নের মালাই গাঁথছেন। কিন্তু আর্জেন্টিনার সবচেয়ে জনপ্রিয় পত্রিকা ‘ওলে’ তাদের সেই শিরোপা স্বপ্নে জলই ঢেলে দিল। ঐ পত্রিকার মতে , আর্জেন্টিনা রাশিয়ায় বিশ্বকাপ জিততে পারবে না! এই মুহূর্তে আর্জেন্টিনায় আছেন একজন লিওনেল মেসি। কিন্তু ওলে’র দাবি, এক মেসিতে হবে না। বিশ্বকাপ জিতলে হলে আর্জেন্টিনার তিনজন মেসি লাগবে!

আর যার কারণে প্রশ্ন উঠেচ এত অল্প সময়ে মধ্যে আর্জেন্টিনা তিনজন মেসি কে কোথায় পাবে? ওলে’র এই মন্তব্য স্পেনের বিপক্ষে হারের ক্ষোভ-হতাশা থেকে। ৬-১ এই ফলকে কিছুতেই হার মানতে রাজি নয় আর্জেন্টাইনরা। কেননা মঙ্গলবার মাদ্রিদে স্বাগতিক স্পেনের বিপক্ষে লড়াইয়েরও ‘ল’ও দেখাতে পারেনি মেসিবিহিন আর্জেন্টিনা।

কেউ এটা বলছেন ‘মহাবিপর্যয়’। কেউ বলছে বিধ্বস্ত হয়েছে আর্জেন্টিনা। এমন বাজে হারের পর সমালোচনা হবে, তা জানতেন কোচ সাম্পাওলি। মঙ্গলবার ম্যাচ শেষে তাই তিনি নিজেই বলেন, আর্জেন্টিনাকে চপেটাঘাত করেছে স্পেন। কষে চড় লাগিয়েছে লাগে! কিছু কিছু পত্রিকা কোচ সাম্পাওলির সেই মন্তব্যগুলো ধার করেছে। প্রতিবেদন করেছে বাহারিসহ শিরোনাম দিয়ে।

আর তাই বিশ্ব গণমাধ্যমের দৃষ্টি বেশি কেড়েছে ওলে’র শিরোনামটিই। পত্রিকাটি শিরোনামই করেছে, ‘ফালতান ট্রেস মেসিস। ’ স্প্যানিশ ভাষার বাক্যটির বাংলা অর্থ ‘আমাদের তিনজন মেসি লাগবে!’ প্রতিবেদনের ভেতরে ৬-১ কে আখ্যায়িত করেছে ‘ঐতিহাসিক’ হার বলে। দাবি করেছে, ৬ গোল খাওয়াটা স্বাভাবিক কোনো ঘটনা নয়। অস্বাভাবিক। মেসিবিহিন আর্জেন্টিনা নিজেদের ভঙ্গুরতার দিকটাই দেখিয়ে দিয়েছে। এই হার চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে, বিশ্বের বড় দলগুলোর তুলনায় আর্জেন্টিনার মান কতটা নিচে।

টিওয়াইসি স্পোর্টস এই হারকে আখ্যায়িত করেছে ‘দশকের বিব্রতকর হার’ হিসেবে। তবে এখন দেখাই যাক সময় কি বলে । তার জন্য আর কটা দিন আমাদের অপেক্ষা করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *